বাংলা | English    



 

সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর

ব্র্যাককে কেন অনুদান পাঠাবেন?

কোভিড-১৯ জরুরি খাদ্য সহায়তা তহবিলটি ব্র্যাক এবং অন্যান্য দাতাদের অনুদানে সমন্বিতভাবে তৈরি। এটি পরিচালনার দায়িত্বে আছে ব্র্যাক।

এছাড়া প্রশিক্ষিত কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবীদের সমন্বয়ে দেশব্যাপী ব্র্যাকের রয়েছে একটি বৃহৎ নিরবচ্ছিন্ন পরিচালনা ব্যবস্থা, যা দেশের ৬৪টি জেলার প্রতিটি এলাকার শেষ প্রান্ত পর্যন্ত বিস্তৃত। পাশাপাশি দক্ষ, কঠোর ও পরীক্ষিত তদারকি ব্যবস্থার মাধ্যমে ব্র্যাক আপনার অনুদান সঠিক ব্যক্তির কাছে পৌঁছানো নিশ্চিত করে।

কোভিড-১৯ মোকাবেলায় ব্র্যাক কীভাবে কাজ করছে, তা জানতে পড়ুন: BRAC’s COVID-19 response in Bangladesh situation reports.

জেনেভাভিত্তিক স্বাধীন গণমাধ্যম সংস্থা এনজিও অ্যাডভাইজার ২০২০ সালে একাধারে পঞ্চমবারের মতো ব্র্যাককে বিশ্বের এক নম্বর উন্নয়ন সংস্থা হিসেবে চিহ্নিত করেছে। ব্র্যাক সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পড়ুন: http://www.brac.net/who-we-are

অনুদান সঠিক মানুষের কাছে পৌঁছাচ্ছে কিনা তা কীভাবে বোঝা যাবে?

বিগত ৪৭ বছর ধরে উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনার ফলে বাংলাদেশের নগর ও গ্রাম উভয় অঞ্চলে বসবাসরত জনগোষ্ঠী সম্পর্কে ব্র্যাকের রয়েছে গভীর ও নিবিড় ধারণা। দেশের ৬৪টি জেলার সবকটিতে আমাদের কার্যালয় রয়েছে। এসব কার্যালয়কে ভিত্তি করে সারা দেশে আমাদের ১ লাখ কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবী সমন্বয়ে সুবিশাল কর্মীবাহিনী অর্থনৈতিক সঙ্কটে পড়া ঝুঁকিপূর্ণ পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়াতে সক্রিয়ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

প্রাথমিকভাবে জরুরি আর্থিক সহায়তা প্রদানের জন্য ব্র্যাক বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় বাস করা চরম দরিদ্র পরিবার, হাওর ও চর এলাকার মতো দুর্গম অঞ্চলগুলোতে বসাবাসরত প্রান্তিক মানুষ, কক্সবাজারের স্থানীয় দরিদ্র জনগোষ্ঠী এবং পাবর্ত্য চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীগুলোকে চিহ্নিত করেছে।

ওপরোল্লিখিত তালিকা থেকে বিশেষভাবে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে যেখানে বৃদ্ধ সদস্য, প্রতিবন্ধী ব্যক্তি, গর্ভবতী নারী বা শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন এমন মা রয়েছেন, যেসব পরিবারের প্রধান নারী, যেসব পরিবার সরকারের সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচির আওতার বাইরে রয়েছে, এবং যেসব পরিবার মহামারী শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত কোনো উৎস থেকেই সহায়তা পায়নি যেসব পরিবারকে।

ব্র্যাকের ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম সরকারের সাথে সমন্বয় হচ্ছে কীভাবে?

সারা দেশে পরিচালিত ব্র্যাকের সকল কর্মসূচি এবং শাখা অফিসগুলো সরকারের ত্রাণ কার্যক্রমের সাথে সমন্বয় করে কাজ করে যাচ্ছে। জরুরি আর্থিক সহায়তা প্রদানের কাজে পুনরাবৃত্তি যথাসম্ভব ঠেকাতে ব্র্যাকের মাঠকর্মী ও জ্যেষ্ঠ শাখা কর্মকর্তারা স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে আলোচনার মাধ্যমে সমন্বয় করে থাকেন। কোভিড-১৯ সঙ্কট মোকাবেলায় সরকারের সার্বিক পরিকল্পনায় সহযোগী হিসেবে কাজ করছে ব্র্যাক। এক্ষেত্রে ব্র্যাকের সকল কার্যক্রম জাতীয়ভাবে গৃহীত বিবিধ উদ্যোগের পরিপূরক ভূমিকা পালন করছে।

সরকারের বাইরে অন্যান্য সংগঠন বা ব্যক্তি সহায়তার সঙ্গে পুনরাবৃত্তি এড়াতে কী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে?

যাদের কাছে সহজে কোনো ধরনের সাহায্য পৌঁছায় না, সেসব চরম দরিদ্র মানুষ, দুর্গম এলাকায় বসবাসরত সুবিধাবঞ্চিত মানুষ, বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী এবং কক্সবাজার জেলার স্থানীয় দরিদ্র মানুষের কাছে সহায়তা পৌঁছানোই ব্র্যাকের প্রধান লক্ষ্য। সহায়তা প্রদানের ক্ষেত্রে পুনরাবৃত্তি এড়াতে ব্র্যাকের কর্মীবাহিনী সব এলাকায় স্থানীয় প্রশাসন, অন্যান্য এনজিও এবং নাগরিক সমাজের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করে থাকে।

শহর এলাকা যেখানে আরো বেশি সংখ্যক ব্যক্তি ও সংগঠন নিজ নিজ উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করছেন সেখানে পুনরাবৃত্তি এড়ানোর জন্য নগরের বস্তি এলাকাগুলোকে কেন্দ্র করে একটি মানচিত্র প্রস্তুত করেছে ব্র্যাক। মানচিত্রটির সাহায্যে ত্রাণ দিতে আগ্রহীরা পুনরাবৃত্তি এড়িয়ে যাঁদের কাছে সহায়তা পৌঁছেনি তাঁদের কাছে যেতে পারবেন। এভাবে সকলের সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে আরো বেশি মানুষের কাছে পৌঁছানো সম্ভব হবে। চরম সঙ্কটে থাকা আরো বেশি সংখ্যক মানুষ সহায়তা পাবেন। মানচিত্রটি দেখতে ক্লিক করুন: http://urbanslummap.brac.net/slum_map.html

অনুদান বিতরণে তদারকি ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে কী ব্যবস্থা নিয়েছে ব্র্যাক?

ব্র্যাকের কর্মীদের একটি দল স্থানীয় জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিদের সাথে মিলে সহায়তার প্রয়োজন এমন ব্যক্তি ও পরিবারগুলোকে প্রথমে চিহ্নিত করে। পরিবারের একজন সদস্যকে এই পরিমাণ টাকা দেওয়া হয় বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পাঠানো হয়। ব্র্যাকের কর্মী যে মোবাইল ফোন নম্বরে টাকা পাঠানো হয়েছে সেই নম্বর ও এটি যে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বরে নিবন্ধিত সেই নাম ও নম্বর সংরক্ষণ করেন। যদি নগদ অর্থ প্রদান করা হয় সেক্ষেত্রে গ্রহীতার আঙুলের ছাপসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সাক্ষ্যপ্রমাণ সংরক্ষণ করা হয়।

ব্র্যাকের অর্থ ও হিসাব বিভাগ এবং অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা দল নিবিড় পর্যবেক্ষণ ও নিরীক্ষার মাধ্যমে আর্থিক সহায়তা প্রদানের সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটির কার্যকারিতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করে থাকে, যা দাতাসহ সকল অংশীদারের আস্থা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়া তথ্য-উপাত্তের স্বচ্ছ প্রবাহ নিশ্চিত করতে আমাদের মাঠপর্যায়ের কর্মীরা স্থানীয় সরকার এবং অংশীদার সংগঠনগুলোর সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন।

ব্র্যাক কি অনুদানগ্রহীতার ছবি পাঠাতে পারবে?

এত বেশি সংখ্যক মানুষের মধ্যে আর্থিক সহায়তা প্রদানের সময় প্রত্যেকের আলাদা ছবি নেওয়ার বিষয়টির নিশ্চয়তা দেওয়া সম্ভব নয়। এছাড়া, সহায়তা গ্রহণের ছবি তোলার ব্যপারে অনেকেরই আপত্তি থাকে।

তবে আপনারা ব্র্যাকের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের চ্যানেল এবং BRAC’s COVID-19 response in Bangladesh situation reports লিংকে গিয়ে মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের পাঠানো বাস্তব অভিজ্ঞতার গল্প ও ছবি দেখতে পারেন।

ব্র্যাক কেন আর্থিক সহায়তার জন্য আহ্বান জানাচ্ছে?

ব্র্যাক ইতিমধ্যে নিজস্ব এবং দাতা সমন্বয়ে গঠিত তহবিল থেকে দুই লাখ পরিবারকে সহায়তা দিয়েছে। কিন্তু প্রয়োজন এর থেকে আরো অনেক বেশি। বাংলাদেশের দিন এনে দিন খাওয়া লাখ লাখ পরিবার সামাজিক দূরত্ব রক্ষায় নানা পদক্ষেপের কারণে ঘরে থাকতে বাধ্য হলেও ক্ষুধায় কষ্ট পাচ্ছে। এসব পরিবারের বেঁচে থাকা নিশ্চিত করতেই সামর্থ্যবান গোষ্ঠী, স্বেচ্ছাসেবী দল, সংগঠন ও ব্যক্তির কাছে অনুদান পাঠানোর জন্য আহ্বান জানাচ্ছে ব্র্যাক।

জরুরি ত্রাণসামগ্রী যেমন খাবার-পানি, ওষুধ বা অন্যান্য দ্রব্যের বদলে ব্র্যাক কেন আর্থিক সহায়তা বা অনুদান দিচ্ছে?

জরুরি খাদ্য সহায়তা তহবিল কার্যক্রমের পাশাপাশি ব্র্যাক করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ব্যক্তিগত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বিষয়ে দেশজুড়ে জনসচেতনতা অভিযান পরিচালনা করছে। এছাড়া সাবান, তরল সাবান, হ্যান্ডস্যানিটাইজার, গ্লাভস, মাস্ক, সুরক্ষাপোশাক (পার্সোনাল প্রটেকটিভ ইকুইপমেন্ট - পিপিই) বিতরণ করছে। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ব্র্যাকের কার্যক্রমের বিস্তারিত জানতে এ বিষয়ে হালনাগাদ প্রতিবেদন পড়ুন: BRAC’s COVID-19 response in Bangladesh situation reports

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সরকারি নির্দেশে সামাজিক দূরত্বের পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে উদ্ভূত অর্থনৈতিক সঙ্কটে সাড়া প্রদানের প্রয়োজন থেকে ব্র্যাক জরুরি খাদ্য সহায়তা তহবিলটির সূচনা করে। দেশজুড়ে পরিচালিত সাম্প্রতিক একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে দেশের ১৪ শতাংশ নিম্নআয়ের পরিবারে কোনো খাবার নেই। ৬৪ জেলায় ২৬৭৫ জন নিম্নআয়ের ব্যক্তির অংশগ্রহণে পরিচালিত এই জরিপে আরো দেখা গেছে, সরকারঘোষিত সাধারণ ছুটি ও বন্ধের কারণে উত্তরদাতাদের ৭২ শতাংশের চাকরি চলে গেছে বা কাজের সুযোগ কমে গেছে। যাঁদের এখনও চাকরি আছে তাঁদের ৮ শতাংশ বেতন/মজুরি পাননি। সম্পূর্ণ প্রতিবেদনটি পড়তে ক্লিক করুন: https://drive.google.com/file/d/1_W4lUWAxOTOiyJGp7PicgYHtPKXr8rKu/view

উদ্ভূত জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় অত্যাবশ্যকীয় খাদ্য উপকরণ কেনায় সহযোগিতা করার লক্ষ্যে এই তহবিলটি গঠন করা হয়েছে।

ব্র্যাক কি পোশাক বা খাবারের মতো অ-আর্থিক সহায়তা গ্রহণ করে?

পচনশীল দ্রব্য, গৃহস্থালি সামগ্রী বা পোশাকের মতো অ-আর্থিক কোনো সামগ্রী ব্র্যাক এক্ষেত্রে অনুদান হিসেবে গ্রহণ করছে না। কারণ, পণ্যসামগ্রী পরিবহনের সময় নষ্ট হওয়া বা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। পাশাপাশি, পরিবহনের খরচের জন্য মোট ব্যয়ও বেড়ে যায়।

এছাড়া, সংক্রমণের তীব্র ঝুঁকির কারণে অনেক স্থানে বাইরের মানুষ প্রবেশ এখন পুরোপুরি নিষিদ্ধ। সেসব জায়গায় আমাদের মাঠকর্মীদের পক্ষে খাদ্যসামগ্রী বা অন্য কোনো পণ্য বহন করে নিয়ে যাওয়া প্রায় অসম্ভব।

অনুদানের ফলাফল কী?

আর্থিক অনুদানের ১,৫০০ টাকা দিয়ে চার সদস্যের একটি পরিবার দু-সপ্তাহ অত্যাবশ্যকীয় খাদ্যসামগ্রী কিনতে সক্ষম হবে।

ব্র্যাককে অনুদান পাঠালে আমি কি আয়কর প্রদানের ক্ষেত্রে ছাড় পাব?

আর্থিক অনুদানের মাধ্যমে ব্যক্তিগত আয়করে ছাড় পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

বাংলাদেশের আয়কর আইন ও বিধি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের ওয়েবসাইট দেখুন: http://nbr.gov.bd/taxtypes/income-tax/income-tax-paripatra/eng

বাংলাদেশের বাইরে থেকে অনুদান পাঠাতে আগ্রহীদের অনুদানের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য আইন ও বিধি সম্পর্কে জানতে অনুরোধ করা হচ্ছে।

অনুদানগ্রহীতা বা তাঁর পরিবারকে কি আমার পরিচয় বা অনুদানের পরিমাণ সম্পর্কে জানানো হবে?

এই তহবিলের কার্যক্রম অনেক বড় হওয়ার ফলে এবং জরুরি মানবিক সঙ্কট মোকাবেলা কার্যক্রমের সুনির্দিষ্ট প্রকৃতির কারণে অনুদান প্রদানকারীর পরিচয় গ্রহীতাকে জানানো সম্ভব নয়।

সহায়তা কার্যক্রম সম্পর্কে আমার কাছে কোনো প্রতিবেদন পাঠানো হবে?

এই তহবিলের কার্যক্রম অনেক বড় হওয়ার ফলে এবং জরুরি মানবিক সঙ্কট মোকাবেলা কার্যক্রমের সুনির্দিষ্ট প্রকৃতির কারণে আমাদের পক্ষে প্রত্যেক অনুদান প্রদানকারীর কাছে পৃথক প্রতিবেদন দাখিল করা সম্ভব নয়। তবে মোট অনুদান সংগ্রহ এবং মোট কত পরিবারের কাছে সহায়তা পৌঁছানো হয়েছে তার হালনাগাদকৃত প্রতিবেদন ব্র্যাকের ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে।

আর্থিক সহায়তা প্রদানের সময় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা হচ্ছে কীভাবে?

আমাদের মাঠপর্যায়ের কর্মীরা সুরক্ষা এবং সামাজিক দূরত্বের পদক্ষেপ সম্পর্কে প্রশিক্ষিত। ভিড় এড়ানোর উদ্দেশ্যে একজন কর্মী একজন গ্রহীতার হাতে অর্থ প্রদান করেন। এছাড়া আমরা মোবাইলের আর্থিক পরিষেবার মাধ্যমেও যেখানে সম্ভব সরাসরি গ্রহীতার কাছে অনুদান পাঠিয়ে থাকি।

কোনো অনুদানগ্রহীতার সঙ্গে আমি কি সরাসরি কথা বলতে পারি?

এই তহবিলের কার্যক্রম অনেক বড় হওয়ার ফলে এবং জরুরি মানবিক সঙ্কট মোকাবেলা কার্যক্রমের সুনির্দিষ্ট প্রকৃতির কারণে আমাদের পক্ষে দাতার সঙ্গে অনুদানগ্রহীতার সরাসরি সংযোগ ঘটানো সম্ভব নয়। তবে ব্র্যাকের ফেসবুক পেইজে আমরা কিছু সময় পরপর এ বিষয়ে কেসস্টাডি প্রকাশ করব: https://www.facebook.com/BRACWorld/

সর্বনিম্ন বা সর্বোচ্চ কত টাকা পর্যন্ত অনুদান দেওয়া যাবে?

কোভিড-১৯ জরুরি খাদ্য সহায়তা তহবিলে ১ টাকা থেকে শুরু করে, যেকোনো পরিমাণ অর্থ অনুদান দেওয়ার সুযোগ রয়েছে।

একাধিকবার অনুদান দেওয়ার সুযোগ আছে কি?

এই তহবিলে যতবার ইচ্ছা ততবার অনুদান দেওয়া যাবে।

Copyright ©BRAC 2020.